Advertisements

বিজ্ঞাপন আর হোর্ডিংয়ে ছিপছিপেদের রমরমা থাকলেও ব্যক্তিগত জীবনে মোটা গড়নের মেয়েদেরই পছন্দ ছেলেদের। কারণ হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ কয়েকটি পয়েন্ট তুলে

ছিপছিপে রোগা নয়, বরং একটু ভরাট চেহারার তন্বীদেরই পছন্দ করেন ছেলেরা। হ্যাঁ… ঠিকই শুনছেন। তাই স্বাস্থ্যবতী বলে আমার প্রেমিক জুটবে না এমন ধারণা ভুল। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেলেরা স্বীকার করেছে কার্ভি মেয়েদেরই বেশি মনে ধরে তাদের। আর কেনই বা প্রেমিকা হিসেবে প্রথম পছন্দ কার্ভিরা তার বেশ কয়েকটি কারণও দেখিয়েছে। তবে মনে রাখবেন কার্ভি আর স্থূল এক নয়। বাংলায় কার্ভি শব্দের অর্থ যেসব মেয়েরা ভরাট চেহারার অধিকারী। কালীদাস পছন্দের প্রেয়সীর বর্ণনা দিতে গিয়ে সেই কবেই লিখে গিয়েছিলেন-

‘তন্বী তরুণী, শ্যামলিম তনু, শিখরোজ্জ্বল দশন পুট,
পক্ব বিম্ব অধর ওষ্ঠ, ক্ষীণ কটি তার, নাভিটি কূট,
চকিত-হরিণী নয়নের দিঠি, অলসগমনা শ্রোণীর ভারে;
কুচ চাপে নত যুবতী-যেন বা বিধাতে প্রথম সৃজিল’

এবার দেখা যাক ঠিক কোন কারণে কার্ভি মেয়েদেরই পছন্দ করে ছেলেরা

মন খুলে খাওয়া দাওয়া
প্রেম মানেই ডেটিং আর মন খুলে খাওয়া দাওয়া মাস্ট। এদিকে যাঁরা রোগা তাঁদের খাবারের প্রতি আকর্ষণ কমই থাকে। বরং মোটা হয়ে যাওয়ার ভয়ে কাবাব, আইসক্রিম থেকে দূরে থাকতে চান। রান্নাতেও বিশেষ উৎসাহ থাকে না। শুধু কি আর মোমোতে প্রেম জমে? মাঝে মধ্যে তো ঝাল আলুকাবলি আর ফুচকাও প্রয়োজন। আড্ডা মারতে চায়ের সঙ্গে টায়েরও দরকার। আর তাই ভালো করে খেতেও হবে। যাঁরা একটু ভারিক্কি চেহারার হন তাঁরা খেতে আর খাওয়াতে দুটোই ভালোবাসেন। ফলে বিয়ের পরের ইনিংসও ভালো জমে

উষ্ণ আলিঙ্গন
কার্ভি চেহারার মেয়েরা ভালো আলিঙ্গন (Hug) করতে পারেন। এমনটাই নাকি অনুভব করেছেন ছেলেরা। তাঁদের সেই আলিঙ্গনের মধ্যে প্রেমের ছোঁয়া থাকে। আর তাই সেই আলিঙ্গনের প্রতীক্ষায় তাঁরা অনায়াসে দিনের পর দিন কাটিয়ে দিতে পারেন। এই আলিঙ্গনে ভালোবাসা বাড়ে।

ইতিবাচক মনের ইঙ্গিত
রোগাদের তুলনায় মোটাদের মন ভালো হয়। মনে হিংসা জটিলতা কম থাকে। এমনকী তাঁরা খুব সুন্দর ব্যক্তিত্বের অধিকারী হন। ভালো করে বুঝিয়ে কথা বলতে পারেন। সঙ্গীকে কখনও ভেঙে পড়তে দেন না। পাশে থেকে সবসময় সাহস দিয়ে যান। প্রতি মুহূর্তে সঙ্গীকে মনে করিয়ে দেন জীবনে তিনি কত স্পেশ্যাল।

ছেলেরা মনে মনে এমন মেয়েই খোঁজে
ছেলেরা কিন্তু এমন মেয়েদেরই খোঁজে থাকেন। শারীরবৃত্তীয় ক্রিয়ায় কার্ভি মেয়েদের সঙ্গে তাঁরা অনেক বেশি তৃপ্ত। কোনও রকম অশালীন ইঙ্গিত কিন্তু থাকে না তাতে। বরং এমন মেয়েদের ওষ্ঠ ছোঁয়ার জন্যই অপেক্ষা করে তারা। সমীক্ষাও বলে এরকম মেয়েদের সঙ্গে ভবিষ্যতেও ছেলেরা খুশি থাকে।

সবার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা রাখে
যে কোনও রকম পরিস্থিতিতেই কার্ভিরা মানিয়ে নিতে পারেন। এমনকী তাঁদের মধ্যে সেই আত্মবিশ্বাস থাকে যে কোনও কঠিন পরিস্থিতির মোকাবিলা সহজেই করতে পারবেন। ছেলেদের মতে মেয়েদের এই গুণ তাঁরা রীতিমতো পরীক্ষা করে দেখেছেন। তুলনায় রোগা মেয়েদের মানিয়ে চলার ক্ষমতা কম। খুব সহজেই তাঁরা রেগে যান। ঠান্ডা মাথায় পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে পারেন না।

অনেক বেশি যত্নশীল হন
কার্ভিরা তাঁদের কাছের মানুষের ব্যাপারে অনেক বেশি যত্নশীল। শুধু সময়ে মুখের সামনে খাবার তুলে ধরাই নয়, যাবতীয় কাজ তাঁরা একা হাতেই দক্ষতার সঙ্গে সামলাতে পারেন। শ্বশুর-শাশুড়ি বলে দূরে সরিয়ে রাখব এরকম মনোভাব তাঁদের থাকে না। সন্তানকেও খুব ভালোভাবে মানুষ করেন। সকলকে ভালোবাসতে শেখান। শুধুমাত্র নিজের ভালোর কথা ভাবেন না, সবারটা ভাবেন। খুব ছোট ছোট আনন্দও সবার সঙ্গে ভাগ করে নিতে জানেন। সকলের সঙ্গে সমান মিশতে পারেন। এমন মেয়েদের সঙ্গেই সম্পর্ক দীর্ঘমেয়াদী হয়।

By Abraham

Translate »