Advertisements

ধারণা করা হয়, চীনের উহানের একটি বাজার থেকে প্রথম করোনাভাইরাস ছড়িয়েছিল। কিন্তু চীন সে দাবি প্রত্যাখ্যান করে এখন নতুন দাবি নিয়ে হাজির হয়েছে। তারা বলছে, গত বছর বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ভাইরাসটি ছড়িয়েছিল। তারাই প্রথম এ সম্পর্কে সবাইকে জানিয়েছে এবং এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে।

চীনের উহানের একটি জৈব পরীক্ষাগার থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্র অভিযোগ করে। চীন সে অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে। এ ছাড়া উহানের একটি বাজারে প্যাঙ্গোলিন বা বাদুড় থেকে ভাইরাসটি ছড়ানোর অভিযোগও অস্বীকার করেছে দেশটি।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনিং এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘করোনাভাইরাস নতুন ধরনের ভাইরাস। এর তথ্য জানার পর থেকেই আরও অনেক তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। আমরা সবাই জানি, গত বছরের শেষ দিকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মহামারিটি শুরু হয়। চীন প্রথম এ সম্পর্কে প্রতিবেদন প্রকাশ করে। ওই ভাইরাসটি শনাক্ত করে বিশ্বের সবার কাছে জিনোম সিকোয়েন্স জানানো হয়।’

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর কথার জবাবে হুয়া এই মন্তব্য করেন।

টোকিওতে যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের ফোরাম কোয়েডে মন্ত্রীদের এক সম্মেলনে পম্পেও বলেছেন, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির চেপে যাওয়ার প্রচেষ্টার কারণে করোনাভাইরাস সংকট আরও খারাপ অবস্থা ধারণ করেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) মারাত্মক করোনভাইরাসটির উৎসের তদন্ত করার জন্য তত্পরতা শুরু করার পর চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এ বিবৃতি দেওয়া হলো।

জনস হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বজুড়ে ৩ কোটি ৬০ লাখের বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন এবং ১০ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছেন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে ৭৬ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ২ লাখ ১২ হাজারের বেশি মানুষ।

‘সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট’-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে চীনে করোনার উৎস খুঁজতে যে বিশেষজ্ঞ দল পাঠানো হবে, তার তালিকা দেওয়া হয়েছে।

গত মে মাসে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সিদ্ধান্ত নির্ধারণে যুক্ত ওয়ার্ল্ড হেলথ অ্যাসেম্বলির এক বার্ষিক সভায় করোনাভাইরাসের উৎস খোঁজার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। চীনও প্রস্তাবটিকে সমর্থন করেছিল।

By Abraham

Leave a Reply

Translate »