Advertisements

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে এক মাদ্রাসাছাত্রীকে দল বেঁধে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বৃহস্পতিবার তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে আড়াইহাজার থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ তাঁদের গ্রেপ্তার করেছে।

গ্রেপ্তার তিনজন হলেন উপজেলার ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের নজরুল ইসলাম (২৫), তাঁর বড় ভাই বাদল (৩৭) ও একই এলাকার মুছা (২৪)।

মামলার এজাহার ও শিক্ষার্থীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার দুপুরে স্থানীয় একটি মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির ওই ছাত্রী মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে ওই ছাত্রী তার মায়ের মুঠোফোন নম্বরে ফোন করে জানায়, সে স্থানীয় একটি বাজারে বসে আছে। তার মা সেই বাজারে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যান।

ওই ছাত্রীর মা অভিযোগ করে বলেন, ‘মেয়েকে উদ্ধার করার পর জানতে পারি, সাগর পরিচয়ে এক ব্যক্তি আমার মেয়ের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলত। সেদিন মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে একটি নির্জন স্থানে আমার মেয়েকে দেখা করতে ডেকে নেয় সাগর। সেখানে গিয়ে দেখতে পায় সাগর নামের ওই ব্যক্তির আসল নাম নজরুল ইসলাম। আমার মেয়ে চলে আসতে চাইলে সেখানেই আমার মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করে নজরুল। এ সময় সেখানে হাজির হন নজরুলের বড় ভাই বাদল ও নজরুলের বন্ধু মুছা। তাঁরা আমার মেয়েকে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে নজরুলকে সেখান থেকে পাঠিয়ে দেয়। পরে বাদল ও মুছা মিলে আমার মেয়েকে ধর্ষণ করে সেখানে ফেলে রেখে চলে যায়। তারপর থেকে ভয়ে ও লোকলজ্জায় আমার মেয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল।’

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার রাতে অভিযোগ পেয়েই তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীর মা বাদী হয়ে মামলা করেছেন। শনিবার সকালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ওই ছাত্রীকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে।’

প্রথম আলো

By Abraham

Translate »