Advertisements

ভোট চুরির অভিযোগ এনে পুরো নির্বাচনী ব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলছেন, বড় বড় মিডিয়ার সমর্থন, বিশাল অর্থের লেনদেন এবং বড় বড় প্রযুক্তি জো বাইডেনকে প্রেসিডেন্ট বানানো জন্য উঠেপড়ে লেগেছে। ফলে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। খবর বিবিসি, ডেইলি মেইল।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, তার প্রতিপক্ষ কারচুপির মাধ্যমে নির্বাচন চুরির চেষ্টা করছে। হোয়াইট হাউসে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। যদিও এর পক্ষে তিনি কোন প্রমাণ উপস্থাপন করতে পারেননি। তিনি বলছেন, বিভিন্ন রাজ্যে তারা আদালতের হস্তক্ষেপ চেয়ে আবেদন দাখিল করেছেন।

তিনি বলেন ‘আইন-সম্মত’ উপায়ে ভোট গুনলে তিনি সহজেই বিজয়ী হতেন। তার ভাষায়, যদি ‘বেআইনি ভোট’ গোনা হয় তাহলে তাদের কাছ থেকে নির্বাচন চুরি করা হচ্ছে। ট্রাম্প বলছেন যে, কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্যে তিনি অনেক ভোটে এগিয়ে ছিলেন। কিন্তু পরে ‘রহস্যজনক’ ভাবে অনেক নতুন ভোট গোনা শুরু হয়।

তিনি দাবি করেছেন, এখানে নির্বাচন শেষ হবার পর ভোট পাঠানো হয়েছে, বেআইনি ভোট গ্রহণ করা হয়েছে, গোপনে ভোট গোনা হয়েছে, ভোট গণনা কেন্দ্রে রিপাবলিকান দলের পর্যবেক্ষকদের ঢুকতে দেয়া হয়নি। তবে তার এসব দাবীর পক্ষে তিনি কোন প্রমাণ উপস্থাপন করেননি।

তিনি নির্বাচনের আগের মাসগুলোতে প্রকাশিত জনমত জরীপের তীব্র নিন্দা করে বলেন যে, তার সমর্থকদের নিরুৎসাহিত করার উদ্দেশ্যে জো বাইডেনকে এগিয়ে দেখিয়ে এসব জরিপ প্রচার করা হয়েছিল।

নির্বাচনের আগে বেশির ভাগ জরিপে দেখা গেছে যে, বাইডেন দেশব্যাপী এগিয়ে আছেন। অনেক পর্যবেক্ষক ধারণা করেছিলেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থীর বিপুল বিজয় হবে।

এদিকে, ট্রাম্পের এক নির্বাচনী কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল সিবিএসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, জো বাইডেন জয় ঘোষণা করলেই ডোনাল্ড ট্রাম্প পরাজয় মেনে নেবেন, তেমন কোন পরিকল্পনা প্রেসিডেন্টের নেই। একটি সুষ্ঠু এবং অবাধ নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট জয়ী হবেন বলে আশা প্রকাশ করা হয়েছে।

এখন পর্যন্ত জো বাইডেনের দখলে রয়েছে ২৬৪টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট। সেখানে ট্রাম্পের ঝুলিতে ২১৪টি। প্রেসিডেন্ট হতে দরকার ২৭০ ভোট। সেদিক বিবেচনায় ট্রাম্পের চেয়ে বাইডেন অনেকটাই এগিয়ে গেছেন।

গণনার প্রথমদিকে বেশকিছু অঙ্গরাজ্যে এগিয়েছিলেন রিপাবলিকানরা। কিন্তু পোস্টাল ব্যালট গণনা শুরু হতেই ছবিটা একটু-একটু করে বদলাতে শুরু করে। এগিয়ে যান বাইডেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত নেভাদা, অ্যারিজোনা, পেনসিলভেনিয়া ও জর্জিয়ায় পোস্টাল ব্যালট গণনা চলছে। গণনা শেষ না হলে চূড়ান্ত ফল মিলবে না। তবে লড়াইমঞ্চ এত তাড়াতাড়ি ছেড়ে দেবেন না বলে ফের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ট্রাম্প।

Translate »