Advertisements

যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার তেল খাতের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে আমেরিকা। সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে বড় ধরনের পরাজয়ের পর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ক্ষমতা থেকে বিদায় যখন নিশ্চিত হয়ে গেছে তখন আমেরিকায এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করল।

নতুন নিষেধাজ্ঞার আওতায় সিরিয়ার বেশ কয়েকজন সংসদ সদস্য এবং গোয়েন্দা কর্মকর্তাকেও আনা হয়েছে। এসব ব্যক্তি সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদকে সমর্থন দিচ্ছেন- আমেরিকার দৃষ্টিতে এটি হলো তাদের অপরাধ।

সিরিয়ার উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে যখন আসাদ সরকার পূর্ণাঙ্গ বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে তখন দামেস্কের অর্থ প্রবাহের উৎস বন্ধ করে দেয়ার চেষ্টা করছে ওয়াশিংটন।

মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয় গতকাল (সোমবার) এক বিবৃতিতে জানিয়েছে যে, সিরিয়ার সামরিক কর্মকর্তা বেশ কয়েকজন সংসদ সদস্য এবং সরকারি প্রতিষ্ঠানের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। একই সঙ্গে সিরিয়া ও লেবাননের আরো কিছু নাগরিকের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে আমেরিকা।

মার্কিন অর্থমন্ত্রী স্টিভেন নুচিন এক বিবৃতিতে বলেছেন, তার মন্ত্রণালয় আসাদ সরকার ও তাদের সমর্থকদের উপর চাপ সৃষ্টি অব্যাহত রাখতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

অন্যদিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও আলাদা বিবৃতিতে সিরিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দিয়েছেন।

By Abraham

Translate »