Advertisements

মিয়ানমারের দ্বিতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসতে যাচ্ছে অং সান সু চি’র ক্ষমতাসীন ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি)।

সোমবার (৯ নভেম্বর) ভোট গণনার প্রথম অংশের ফল প্রকাশ পেলে বিভিন্ন জরিপের তথ্যে এমন কথা বলা হয়েছে।

 

এর আগে দীর্ঘ পাঁচ দশকের সামরিক শাসনের সমাপ্তির পর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ মিয়ানমারে রোববার (৮ নভেম্বর) দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হয় সাধারণ নির্বাচন। তবে এই নির্বাচনে ভোট দিতে পারেনি রোহিঙ্গারা। নির্বাচন হয়নি রাখাইন স্টেটেও।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিদেশে সু চি তার সুনাম ধরে রাখতে না পারলেও মিয়ানমারে বেড়েছে তার জনপ্রিয়তা। সেদিক থেকে এবারের নির্বাচনে তার দল ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

দেশটির নির্বাচন কমিশন সোমবারের পর সরকারি ফলাফল ঘোষণা করবে বলে আশা করা হচ্ছে। তবে আনুষ্ঠানিক ফেসবুক পেজে চলমান তালিকায় এনএলডি জানিয়েছে যে, ৪২৫ সদস্যের নিম্ন সভায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা ৩১৫টি আসনের মধ্যে ফলাফল প্রাপ্ত ১৫টি আসনেই জিতেছে তারা।

এ বিষয়ে এনএলডির মুখপাত্র মায়ো নুউন জানিয়েছেন, আমরা বিশ্বাস করি যে আমরা সরকার গঠন করতে পারবো। আর এটাও বিশ্বাস করি যে আমরা বিজয়ী হবো।

আর পুরো নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু হয়েছে বলেও এসময় জানান তিনি।

এবারের নির্বাচনে মোট নিবন্ধিত ভোটার সংখ্যা তিন কোটি ৭০ লাখ। নির্বাচনে বিজয়ী হতে হলে দুই কক্ষবিশিষ্ট দেশটির সংসদের হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভে কমপক্ষে ২২১টি আসন এবং হাউজ অব ন্যাশনালিটিসে কমপক্ষে ১১৩টি আসন পেতে হবে।

কোনো রাজনৈতিক দল এককভাবে অথবা একাধিক রাজনৈতিক দল যুগ্মভাবে আসনগুলো পেলে যুক্ত সরকার গঠন করতে পারবে। তবে সংসদের উভয়কক্ষে এক চতুর্থাংশ আসন সামরিক বাহিনীর জন্য সংরক্ষিত থাকবে। নির্বাচনে বিজয়ী দল সরকার গঠন করবে ২০২১ সালের মার্চ মাসে।

By Abraham

Translate »