Advertisements

আগামী গ্রীষ্ম শেষে করোনার নতুন টিকার প্রভাব সুস্পষ্ট হতে শুরু করবে। সেই হিসেবে আগামী শীতে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে বিশ্ব।

যুক্তরাষ্ট্রের ফাইজারের সঙ্গে যৌথভাবে করোনার টিকা উন্নয়নকারী প্রতিষ্ঠান জার্মানির বায়োএনটেকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা উগুর শাহিন এই আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

 

তিনি জানান, এখনও যেহেতু করোনার টিকা বাজারে আসেনি, তাই করোনার সংক্রমণ বাড়ার ক্ষেত্রে ব্যাপক প্রভাব ফেলবে চলতি শীত মৌসুম।

গত সপ্তাহে ফাইজার ও বায়োএনটেক তাদের টিকার প্রাথমিক ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে দাবি করা হয়েছে তাদের টিকা পাওয়া ৯০ শতাংশ মানুষ করোনা প্রতিরোধ করতে সক্ষম। তাদের এই গবেষণায় প্রায় ৪৩ হাজার মানুষ অংশ নিয়েছিল।

বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শাহিন জানান, করোনার টিকা সংক্রমণের হার কমাবে বলে তিনি শতভাগ আস্থাশীল। টিকার একটি বড় প্রভাব হচ্ছে সংক্রমণের হার অর্ধেকে নামিয়ে আনা।

 

তিনি বলেন, ‘আমি অত্যন্ত আস্থাবান যে এ ধরনের অতি কার্যকর টিকার মাধ্যমে মানুষের মধ্যে সংক্রমণ কমানো যাবে-হয়তো ৯০ শতাংশ নয়, তবে ৫০ শতাংশ হতে পারে। আমাদের ভুলে যাওয়া উচিত নয় যে, মহামারির বিস্তার রোধে এটিও নাটকীয় কমানোর হার।’

By Abraham

Translate »