Advertisements

করোনাভাইরাস মহামারির শুরু থেকেই নানা অবাক করা ঘটনা সামনে এসেছে। করোনার ভয়ে নানা পদক্ষেপ নিতেও দেখা গেছে। তবে অস্ট্রেলিয়ার একটি অঙ্গরাজ্যে যে ঘটনা ঘটেছে তা সবাইকে অবাক করবে। সেখানে একজনের কারণে লকডাউনের কবলে পড়েছেন ১৭ লাখ মানুষ।.

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, সাউথ অস্ট্রেলিয়া অঙ্গরাজ্য করোনা সংক্রমণ রুখতে বরবারই কঠোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে বেশ কয়েকদিন ধরে করোনার বিধিনিষেধ কিছুটি শিথিল ছিল। সম্প্রতি সেখানকার একটি পিৎজা শপের কর্মী করোনায় আক্রান্ত হন। কিন্তু তিনি তার করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর কাউকে জানাননি। করোনা নিয়েই দায়িত্ব পালন করেন ওই পিৎজাকর্মী। এতে তার সংস্পর্শে আসেন অনেক ক্রেতাও।

পরে বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই গোটা রাজ্যে বাধ্যতামূলক লকডাউন ঘোষণা করে প্রশাসন। গত বুধবার থেকে সেখানে বাধ্যতামূলক লকডাউন চলছে। রবিবার শেষ হচ্ছে ছয়দিনের লকডাউন।,

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী স্টিভেন মার্শাল জানিয়েছেন, আগামী ৬ দিন লকডাউন কার্যকর থাকবে। তবে করোনা নিয়ে এমন অবহেলায় ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি।,

মার্শাল বলেন, ‘এক ব্যক্তির কর্মকাণ্ডে আমরা একেবারেই হতাশ। আপনারা দেখতেই পাচ্ছেন তার মিথ্যা কথার কি পরিণতি হলো। তবে এই ঘটনা আরো গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছি।’

অঙ্গরাজ্যের পুলিশ কমিশনার গ্র্যান্ট স্টিভেন্স, পিৎজা বারটিকে সংক্রমণের কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। যদিও ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে জানান তিনি। পিৎজা বারকে কেন্দ্র করে যারা সংস্পর্শে এসেছিলেন তাদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।,

Leave a Reply

Translate »