সহকর্মীর ছোড়া পেট্রলে দগ্ধ যুবকের মৃত্যু

Advertisements

রাজধানীর শ্যামপুর জুরাইনে পেট্রল পাম্পে গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়ায় ঘটনায় দগ্ধ যুবক রিয়াদ হোসেন (২০) মারা গেছেন।

শুক্রবার দিবাগত রাত সোয়া ১২টার দিকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া  এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, সালাউদ্দিন নামের ফিলিং স্টেশনে কর্মচারী হিসেবে কাজ করতেন রিয়াদ। চারজন অপারেটর মঙ্গলবার রাতে ডিউটিতে ছিলেন। তাদের মধ্যে মাহমুদুল হাসান ইমন নামে এক অপারেটর ঘুমিয়ে পড়েন। পরে রিয়াদ তাকে ডাকতে যান। ইমন ঘুম থেকে না ওঠায় তার গায়ে সামান্য পেট্রল ছিটিয়ে তাকে ওঠানোর চেষ্টা করেন রিয়াদ। এতে ইমন ঘুম থেকে জেগে ক্ষিপ্ত হয়ে একটি বোতলে পেট্রল ভরে রিয়াদের গায়ে ঢেলে দেন। এরপর ইমন ম্যাচের কাঠিতে আগুন ধরিয়ে রিয়াদের গায়ে ছুড়ে মারেন। এতে রিয়াদের শরীরে মুহূর্তেই আগুন ধরে যায়। তার শরীরের ৪০ ভাগ পুড়ে যায়। পরে তাকে বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়।

এই ঘটনায় রিয়াদের বাবা একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় ইমন ছাড়াও দুই অপারেটর ফাহাদ আহমেদ পাভেল ও শহিদুল ইসলাম রনিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

দুই ভাইয়ের মধ্যে রিয়াদ বড়। চলতি বছর রিয়াদ সিদ্ধেশ্বরী কলেজে অনার্সে ভর্তি হন।