ব্রাজিলে করোনার নতুন ধরন প্রতিরোধে সক্ষম ফাইজারের টিকা

Advertisements

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার পর এবার ব্রাজিলে পি১ নামে দ্রুত ছড়িয়ে পড়া নতুন ধরনের করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সক্ষম ফাইজার ও বায়োএনটেক উদ্ভাবিত টিকা।

সোমবার নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনে প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে বলে খবর রয়টার্সের

গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্রাজিলে নতুন ধরনের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত টিকা নেওয়া ব্যক্তিদের রক্ত পরীক্ষা করা হয়েছিল। এর মাধ্যমে জানা গেছে, এই করোনা প্রতিরোধে ফাইজারের টিকা সক্ষম।

ফাইজার ও বায়োএনকেটের বিজ্ঞানী এবং ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস মেডিকেল ব্রাঞ্চ বলছে, ব্রাজিলের নতুন ধরনের করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ফাইজারের টিকার সক্ষমতা আগের ভাইরাস প্রতিরোধের মতোই।

এর আগে প্রকাশিত বিভিন্ন গবেষণা প্রতিবেদনে ফাইজার জানায়, যুক্তরাজ্য ও দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওয়া নতুন ধরনের করোনাভাইরাস রোধে ফাইজারের টিকা কার্যকর ছিল। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকান ধরনের করোনাভাইরাস প্রতিরক্ষামূলক অ্যান্টিবডি কমাতে পারে। ফাইজারের বর্তমান টিকা দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন ধরনের করোনা প্রতিরোধে সক্ষম।

এর আগে, ব্রাজিলে পি১ নামে করোনাভাইরাসের নতুন যে ধরন পাওয়া গেছে তার বিরুদ্ধে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি ভ্যাকসিন কার্যকর বলে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত একটি গবেষণার প্রাথমিক তথ্যে জানানো হয়।

ব্রাজিলের আমাজন বন সংলগ্ন শহর মানাউস থেকে ভাইরাসের নতুন ধরনটি ছড়িয়েছে বলে ধারণা করা হয়