এই গরমে বাসায় বানিয়ে ফেলুন দই, রেসিপি পড়ুন

Advertisements

মিষ্টিমুখের জন্য বাঙালিদের কাছে দই কিন্তু বিকল্পহীন। কয়েক দশক আগেও
দইবিহীন নেমন্তন্ন বাড়ি ভাবাও যেত না। হামআমলে বহু অপশন হাজির হলেও দই রয়েছে তার নিজের জায়গাতেই। দোকানের মতো সুস্বাদু কিন্তু বানিয়ে নিতে পারেন বাড়িতেই।

উপকরণ –

১. ৩ কাপ দুধ

২. ৩/৪ কাপ চিনি

৩. ১ টেবিল চামচ টক দই

৪. ১ টেবিল চামচ জল

প্রণালী –

১. মিষ্টি দই বানাতে প্রথমেই আপনাকে একটি বড় পাত্রে দুধ ঢেলে মাঝারি আঁচে
ফোটাতে থাকুন।

২. ৩/৪ কাপ চিনির ১/৩ অংশ রেখে বাকি চিনি দুধের মধ্যে ঢেলে দিন দুধের
মধ্যে। যতক্ষণ না দুধ ফুটতে ফুটতে চিনি একেবারে গুলে যায়, জ্বাল দিতে
থাকুন।

৩. গ্যাসের আঁচ কমিয়ে দিয়ে দুধ ফোটাতে থাকুন যতক্ষণ না অবধি সেটি অর্ধেক
পরিমাণে নেমে আসে।

৪. বাকি চিনি একটি আলাদা পাত্রে নিয়ে তৈরি করুন ক্যারামেল। পাত্রে
আন্দাজমতো জল দিয়ে চিনি মিশিয়ে জ্বাল দিলেই পেয়ে যাবেন খয়েরি রঙের
ক্যারামেল।

৫. হালকা সোনালি রঙের ক্যারামেল এক চামচ নিয়ে মিশিয়ে দিন জ্বাল দেওয়া দুধের সঙ্গে।

৬. এর পর দুধটিকে ঠান্ডা হতে দিন। তার পর এক টেবিল চামচ টকদই এতে মেশান। ভাল করে মিশিয়ে মিশ্রণটি একটি মাটির অথবা কাচের পাত্রে ঢেলে রাখুন।

৭. তার পর ওই পাত্রটির মুখ ভাল করে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল দিয়ে ঢেকে দিন।

৮। গ্যাসে একটি চাটু বসান। তার উপর একটা ননস্টিক কড়াইয়ের মধ্যে স্ট্যান্ডের উপরে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল ঢাকা পাত্রটি বসান। তোয়ালে দিয়ে পাত্রটি ঢেকে দিন। তার পর নন স্টিক কড়াইটির উপরেও ঢাকনা বসান। ইচ্ছে করলে কড়াইতে কিছুটা জলও দিতে পারেন। যাতে স্ট্যান্ডের কিছুটা জলে ডুবে থাকে।

৯। গ্যাসের আঁচ রাখুন একদম লো-তে। স্টিম আঁচে এভাবে এক থেকে দেড় ঘণ্টা কড়াইটি বসিয়ে রাখুন। ভাপে তৈরি হবে মিষ্টি দই।

১০। গ্যাস থেকে নামিয়ে ঘরের তাপমাত্রায় এনে পাত্রভর্তি দই ঢুকিয়ে দিন ফ্রিজে। তার পর জমাটবাঁধা ঠান্ডা দই আপনার মুখে ওঠার অপেক্ষায়।