বন্ধ হয়ে যাচ্ছে এলজি’র স্মার্টফোন

Advertisements

এলজিই প্রথম কোনো বৃহত্তর স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসাবে বাজার থেকে পুরোপুরি উঠে যাচ্ছে

দক্ষিণ কোরিয়ার এলজি ইলেক্ট্রনিকস এর মোবাইল বিভাগকে বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সোমবার (৫ এপ্রিল) এক বার্তায় এলজি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মোবাইল বিভাগে প্রতিনিয়ত লোকসান হবার কারণেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

এর ফলে এলজিই প্রথম কোনো বৃহত্তর স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসাবে বাজার থেকে পুরোপুরি উঠে যাচ্ছে।

অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের পর এলজিই উত্তর আমেরিকার তৃতীয় জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যােন্ড। এমন সিদ্ধান্তের ফলে উত্তর আমেরিকাতে প্রতিষ্ঠানটি ১০ শতাংশ  শেয়ার ছেড়ে যাচ্ছে।

এলজি’র বিবৃতিতে বলা হয়, মোবাইল বিভাগটি গত ছয় বছর ধরে প্রায় ৪৫০ কোটি ডলার লোকসান দিয়েছে। আর এই প্রচণ্ড প্রতিযোগিতামূলক ক্ষেত্রটি বাদ দিলে তারা ইলেকট্রিক গাড়ির যন্ত্রাংশ, সংযুক্ত ডিভাইস এবং ঘরবাড়ির স্মার্ট যন্ত্রাংশের মান বৃদ্ধির দিকে মনোনিবেশ করতে পারবে।

এক সময় এলজিই সর্বপ্রথম আলট্রা-ওয়াইড এঙ্গেল ক্যামেরাসহ বেশ কয়েকটি সেলফোন উদ্ভাবন করেছিল। ২০১৩ সালে স্যামসাং আর অ্যাপলের পাশাপাশি বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক ছিল এলজি।

তবে পরবর্তীতে, এলজি’র ফ্ল্যাগশিপ মডেলগুলো সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার দু’টি ক্ষেত্রেই পিছিয়ে পড়ে। ধীরগতির সফ্টওয়্যার আপডেটের সাথে সাথেই ব্র্যান্ডটিও এক সময় প্রতিযোগিতার বাজারে পিছনে পড়ে যায়। তবে বিশ্লেষকরা মনে করেন চীনা প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায় বিপণন দক্ষতার পারদর্শীতার অভাবও এলজি’র পিছিয়ে পড়ার জন্য দায়ী।