নলীয়া জামালপুরের ব্যাংকগুলোতে উপচে পড়া ভীড়, বাড়ছে ঝুঁকি

Advertisements

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় দেশের ব্যাংকগুলোতে একধরনের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। কাজ ছাড়া অন্যদের প্রবেশকে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে।

দেশের সব শাখাগুলোতে নিরাপত্তামূলক নানা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বাতিল করা হয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ বিভিন্ন ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষাসহ সব ধরনের অনুষ্ঠান।

বিদ্যমান পরিস্থিতিতে ব্যাংকগুলোতে লেনদেন অর্ধেকে নেমে এসেছে। তবে অনলাইন সেবায় চাপ বেড়েছে। এ জন্য ব্যাংকিং লেনদেনের সময় কমিয়ে আনার দাবি জানিয়েছেন ব্যাংকের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।

বর্তমানে সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১২: ৩০ পর্যন্ত ব্যাংকিং সেবা দেওয়া হয়।

এই ঘোষণার পর থেকে ব্যাংকগুলোতে উচড়ে পড়া ভীড় দেখা যাচ্ছে।

৭এপ্রিল অগ্রণী ব্যাংক, নলীয়া জামালপুর শাখায় গিয়ে দেখা যায় সকাল নয়টা থেকে গ্রাহকরা ব্যাংকের সামনে ভীর করছে ব্যাংক খোলার অপেক্ষা।

ব্যাংক খোলার পর হুড়োহুড়ি করে ব্যাংকে প্রবেশ করছে। এই সীমিত সময়ে ব্যাংকের কার্যক্রম শেষ করতে কর্মকর্তারা হিমসিম খাচ্ছে। গ্রাহকদের অনেকে মাস্ক ব্যবহার করলেও মাস্ক ছাড়াও অনেককে দেখা গেছে।

ব্যাংকাররা নয় শুধু, গ্রাহকরাও ঝুঁকিতে রয়েছেন। এখন লেনদেনের পরিমাণ প্রতিদিনই বাড়ছে। একই সঙ্গে বাড়ছে গ্রাহকদের ভিড়।

গ্রাহকদের দাবি ব্যাংকের সময়সূচি বৃদ্ধি করা হলে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা সম্ভম! তাই ব্যাংকের সময় সূচি বৃদ্ধি করা হোক।