আগামীকাল পবিত্র ঈদুল ফিতর।

Advertisements

আজ দেশের বিভিন্ন স্থানে শাওয়ালের সরু–বাঁকা চাঁদ দেখা গেছে। আগামীকাল পবিত্র ঈদুল ফিতর, ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মুকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় ঈদুল ফিতর উদযাপনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় চাঁদ দেখার মধ্য দিয়ে এক মাস ধরে সিয়াম সাধনার ইতি ঘটল। এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে শুভেচ্ছা বিনিময়। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে আজ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম, মৌলভীবাজার ও জামালপুরের অনেক এলাকায় এবং দেশের বিভিন্ন স্থানে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদ্‌যাপিত হয়েছে।

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো এল পবিত্র ঈদুল ফিতর। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর এই ঈদ আসে আনন্দের বার্তা নিয়ে। পরপর দুই বছর আমাদের এই উৎসবের আনন্দ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে চলমান মহামারির কারণে। এই মহামারিতে বিশ্বে এ পর্যন্ত মোট ৩৩ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু ঘটেছে, আক্রান্ত হয়েছে আরো প্রায় ১৬ কোটি মানুষ ।

এ বছর পবিত্র রমজান শুরু হওয়ার আগেই করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ আঘাত হানার ফলে এবারও সরকার এর পক্ষ থেকে লকডাউন আরোপ করা হয়েছে। এই কঠোর অবস্থানের মধ্যেই এক মাস ধরে মুসলিম জনগোস্ঠি রোজা রেখে সিয়াম সাধনা করেছে ।

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী এবারও ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে মসজিদে মসজিদে। নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদে গিয়ে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে, মাস্ক ব্যবহার করতে হবে, কোলাকুলি অবশ্যই এড়িয়ে চলতে হবে। প্রতিটি মসজিদে ঈদের জামাত পরিচালনাকারী কর্তৃপক্ষকে এসব দিকে বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে হবে। মসজিদগুলোর মাইকে এ সম্পর্কে দিক নির্দেশনা প্রচার করতে বলা হয়েছে ।

সংক্রমণের হার ঢাকায় বেশি এবং ঈদ উপলক্ষে যেহেতু প্রায় ২৮ লাখ মানুষ ইতি মধ্যে ঢাকা ছেড়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছেন এবং আরও অনেকেই যাবেন, তাই এমন আশঙ্কা থাকছে যে উপসর্গহীন কিন্তু সংক্রমিত অনেক মানুষের সংস্পর্শে সারা দেশেই সংক্রমণের হার বাড়বে। তাই যাঁরা গ্রামের বাড়িতে ঈদ করতে গেছেন এবং যাবেন, তাঁদের সেখানে যাওয়ার পরেও বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

সবাইকে সি নিউজ বাংলার পক্ষ থেকে ঈদুল ফিতর এর শুভেচ্ছা।