নুসরাতের বিরুদ্ধে নিখিলের মামলা

Advertisements

নিখিলের সঙ্গে আইনগতভাবে বিচ্ছেদ হয়নি পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত জাহানের। এরই মধ্যে অভিনেতা যশের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে যান নুসরাত। এমনকি তিনি যশকে বিয়ে করেছেন বলেও কানাঘুষা শোনা যায়। এবার এই অভিনেত্রীর মা হওয়ার খবরে তোলপাড় টলিপাড়া। তবে এ ব্যাপারে স্পষ্ট কোনো মন্তব্য না করলেও ইনস্টাগ্রামের স্টোরিতে ইঙ্গিতে মনের ভাব তুলে ধরেছেন নুসরাত। এদিকে নুসরাতের মা হওয়ার খবর চাউর হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে দেওয়ানি মামলা করেছেন স্বামী নিখিল জৈন।

নিখিলের এক কাছের বন্ধুর বরাত দিয়ে ভারতের এক সংবাদমাধ্যম এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, কয়েকমাস আগে কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে গোয়ায় বেড়াতে গিয়েছিলেন নুসরাত। নিখিলই ফ্লাইটের টিকিট ও রিসোর্ট বুক করে দিয়েছিলেন। রিসোর্টের মালিক নিখিলের বন্ধু হওয়ায় নিখিল জানতে পারেন যশের সঙ্গেই ছিলেন নুসরাত। সেই থেকেই নুসরাত-নিখিলের সমস্যার সূত্রপাত। এরপর দক্ষিণেশ্বরের মন্দিরে দাঁড়িয়ে মদন মিত্রের সঙ্গে যশ ও নুসরাতের ছবি ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় গুঞ্জন শুরু হয় সেদিন নাকি নুসরাতের পরনে ছিল রঙ্গোলির শাড়ি, এবং সেদিনই যশকে বিয়ে করেছিলেন নুসরাত!

বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ থেকেও কী করে বিয়ে করলেন নুসরাত, এ প্রশ্ন উঠছিল। নুসরাতের ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাতে জানা গেছে, তুরস্কে নিখিল-নুসরাতের সোশ্যাল ম্যারেজ জাঁকজমকভাবে হলেও বিয়ে রেজিস্ট্রেশন হয়নি তাদের। তাই সমঝোতা করেই দুজনে আলাদা হতে চান বলে জানিয়েছেন নিখিল। এজন্য দেওয়ানি মামলাও করেছেন তিনি।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, নুসরাত এখনো যে ফোর্ড গাড়ি চালান সেটা নিখিলের গাড়ি। নুসরাত ইডেনে যে ফ্ল্যাটে থাকেন তার মধ্যে ৬০ লাখ টাকা নিখিলের দেওয়া। এমনকি নুসরাতের বোনের পড়াশুনার দায়িত্বও নিয়েছিলেন নিখিল।

নিখিলের ঘনিষ্ঠ বন্ধুর মতে নুসরাতের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারেও নিখিলের অবদান অনেক। নুসরাতকে সব বিষয়েই প্রাধান্য দিয়ে এসেছেন তিনি। এমনকি আলাদা থাকার সময়ও নুসরাত নিখিলকে জানান তিনি ফিরে আসবেন। একটু সময় চান। ধীরে ধীরে চারিদিকে নুসরাতের যশের সঙ্গে সম্পর্কের খবর ছড়িয়ে পড়ায় নিখিল তা মেনে নিতে পারেননি। নিখিলের পরিবার সূত্রে জানা যায়, এ খবর পাওয়ার পর তিনি ডিপ্রেশনে চলে গিয়েছিলেন। যশ ও নুসরাতকে একসঙ্গে দেখেও ফেলেন নিখিল। তবে এসব ব্যাপারে একদম মুখ খোলেননি নুসরাত। যশের তরফ থেকেও পাওয়া যায়নি কোনো মন্তব্য।