যেসব এলাকায় করোনার প্রকট কম সেখানেই নির্বাচন হবে: সিইসি

Advertisements

যেসব এলাকায় বর্তমানে করোনাভাইরাসের প্রকট কম কিংবা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিধি নিষেধ নেই সেখানেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ কে এম নুরুল হুদা। রোববার (১৩ জুন) সকালে মাদারীপুরে সার্কিট হাউস ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার নুরুল হুদা বলেন, গত ২১ এপ্রিল প্রথম ধাপে ইউনিয়ন পর্যায়ে নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও করোনার জন্য তা পিছিয়ে ২১ জুন ঠিক করা হয়। আর ৩৭১ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হবার কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতি বেড়ে যাওয়ায় ২০০ ইউনিয়ন পরিষদে অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন।

ইভিএমের মাধ্যমে লক্ষ্মীপুর-২ সংসদীয় আসনের উপনির্বাচন ও ১১টি পৌরসভার ভোট গ্রহণ করা হবে। এছাড়া ২০০টি ইউনিয়নের মধ্যে সীমিত সংখ্যক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ। নির্বাচনের আগে ও পরে যাতে কোনো ধরনের সহিংসতা না হয় সেজন্য জেলা ও পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশ দেয়ার কথাও জানান তিনি।

তিনি বলেন, রাজশাহীতে কোনো নির্বাচন নেই, অথচ সেখানে করোনা সংক্রমণের হার বেশি। ভারতের যেসব রাজ্যে করোনার হার বেশি, সেখানে নির্বাচন হয়নি। নির্বাচন যেখানে হয়েছে, সেখানে করোনা তেমন প্রভাব পড়েনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফরিদপুর অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন কমিশনার মোস্তফা ফারুক, নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহম্মেদ খানসহ অনেকেই।