কঠোর বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিনে বেড়েছে চলাচল

Advertisements

করোনা সংক্রমণের চলমান পরিস্থিতি ঠেকাতে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী দেশজুড়ে গতকাল শুক্রবার (২৩ জুলাই) ভোর ৬টা থেকে শুরু হয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ। এ বিধিনিষেধ চলবে আগামী ৫ আগস্ট দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত। কঠোর বিধিনিষেধে আজ শনিবার (২৪ জুলাই) রাজধানীতে মানুষের চলাচল কিছুটা বেড়েছে।

রাজধানীর শেওড়াপাড়া, তালতলা, আগারগাঁও, বিজয় সরণি, ফার্মগেট, কাওরান বাজার, পান্থপথ ও সার্ক ফোয়ারা মোড় ঘুরে মানুষের চলাচল দেখা গেছে।

 

কঠোর বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিনে বেড়েছে চলাচল

 

সকাল থেকে রাজধানীতে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি ছিলো। সকাল নয়টার দিকে বৃষ্টি কমে যায়। এরপর থেকে প্রয়োজনীয় কাজে মানুষ বাইরে বের হয়। রাস্তায় গণপরিবহন না থাকলেও রিকশা চলাচল করতে দেখা গেছে। রিকশায় করে মানুষ প্রয়োজনীয় কাজে গন্তব্যে যাচ্ছেন।

 

বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সরব উপস্থিতি দেখা গেছে। বাইরে বের হওয়া জনসাধারণকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বাইরে বের হওয়ার সঠিক কারণ দেখাতে পারলে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। আর বিনাকারণে বের হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নিচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

 

 

কঠোর বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিনে বেড়েছে চলাচল

 

রাজধানীর সার্ক ফোয়ারা চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করছিলেন পুলিশ সার্জেন্ট সারোয়ার হোসেন। কঠোর বিধিনিষেধে জনসাধারণ বাইরে বের হচ্ছেন। এ বিষয়ে দৈনিক ইত্তেফাক অনলাইনকে তিনি বলেন, ‘বেশিরভাগ মানুষই চিকিৎসা ও রোগীকে হাসপাতালে নিতে যেতে বের হয়েছেন। তবে যারা বিনাকারণে বের হয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

 

কঠোর বিধিনিষেধের দ্বিতীয় দিনে বেড়েছে চলাচল

 

গত ১৩ জুন বিধিনিষেধ আরোপ করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। ঈদের কারণে ওই আদেশে ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়েছিল। এরপর ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে নতুন করে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।

 

সূত্র: ইত্তেফাক