করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট প্রতিরোধে এশিয়া ও ইউরোপজুড়ে সতর্কতা

Advertisements
ইউরোপ ও এশিয়ার দেশগুলো ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি করোনা পরীক্ষা জোরদারের ঘোষণা দিয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে বর্তমান ভ্যাকসিনগুলো নতুন ভ্যারিয়েন্ট প্রতিরোধে ব্যর্থ হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ প্রতিরোধে এশিয়া ও ইউরোপের দেশগুলো কঠোর বিধিনিষেধ আরোপের পরিকল্পনা করছে। সিঙ্গাপুর এবং ভারত ইতোমধ্যে সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ এবং করোনা পরীক্ষা জোরদারের ঘোষণা দিয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে বর্তমান ভ্যাকসিনগুলো নতুন এই ভ্যারিয়েন্ট প্রতিরোধে ব্যর্থ হবে।

প্রাথমিক পর্যায়ে শনাক্ত মূল করোনাভাইরাসের স্পাইক প্রোটিনের ওপর ভিত্তি করে গবেষকরা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন উদ্ভাবন করেন। কিন্তু নতুন এই ভ্যারিয়েন্টের স্পাইক প্রোটিন মূল ভাইরাসের মতো নয় বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক স্বাস্থ্যসংস্থা হেলথ সিকিউরিটি এজেন্সি।

চলতি সপ্তাহের শুরুতে প্রথমবারের মতো ভাইরাসের নতুন ওই ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়। বিজ্ঞানীরা এখনো এই ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে গবেষণা করছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকা ছাড়াও ইতোমধ্যে বতসোয়ানা এবং হংকংয়ে বি.১.১.৫২৯ নামের ভ্যারিয়েন্টটি শনাক্ত হয়েছে।

ব্রিটেন সাময়িকভাবে দক্ষিণ আফ্রিকা, নামিবিয়া, বতসোয়ানা, জিম্বাবুয়ে, লেসোথো এবং এসওয়াতিনি থেকে আসা ফ্লাইটের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এসব দেশ থেকে আগত ব্রিটিশ নাগরিকদের কোয়ারেন্টাইন পালনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ব্রিটেনের সঙ্গে সিঙ্গাপুরও যোগ দিয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকাসহ প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে যাত্রীদের আগমন সীমিত করার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

দক্ষিণ আফ্রিকা ও আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের দেশগুলোতে গত ১৪ দিনের মধ্যে যারা অবস্থান করেছেন, তাদের ইতালিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে দেশটির সরকার।

ইউরোপীয় দেশগুলো ইতোমধ্যেই বুস্টার ভ্যাকসিন কর্মসূচি জোরদার করেছে। ডেল্টার সংক্রমণে ইউরোপে চলছে করোনার চতুর্থ ঢেউ। দৈনিক রেকর্ড সংখ্যক করোনা আক্রান্ত শনাক্তের কথা জানাচ্ছে দেশগুলো।

জার্মানিতে সম্প্রতি দিনে সর্বোচ্চ ৭৬ হাজার কোভিড আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। দেশটি প্রথমবারের মতো হাসপাতালে চাপ কমাতে গুরুতর কোভিড রোগীদের দেশের অন্যান্য প্রান্তে চিকিৎসা দিতে আকাশপথে রোগী পরিবহন শুরু করেছে।

নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের পর বার্লিন দক্ষিণ আফ্রিকাকে নতুন ভ্যারিয়েন্টের উৎপত্তিস্থল হিসেবে ঘোষণা দেওয়ার কথা জানিয়েছে।

চীনে প্রথম শনাক্ত হওয়ার পর দুই বছরে বিশ্বের প্রায় ২৬০ মিলিয়ন মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়। করোনায় বিশ্বে প্রাণহানির সংখ্যা ৫১ লাখ ছাড়িয়েছে।

এদিকে নতুন ভ্যারিয়েন্ট ছড়ানোর খবরে এশিয়ার পুঁজিবাজারে তিন মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ দরপতন ঘটে।

জাপান দক্ষিণ আফ্রিকাসহ পাঁচ আফ্রিকান দেশের জন্য সীমান্তে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করেছে।

ভারত এই মাসের শুরুতে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা শিথিল করার ঘোষণা দিলেও রাজ্য সরকারগুলোকে দক্ষিণ আফ্রিকাসহ অন্যান্য ঝুঁকিপূর্ণ দেশের ভ্রমণকারীদের কঠোরভাবে পরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছে।

এশীয় দেশগুলো অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় কঠোর বিধিনিষেধ, পরীক্ষা ও সীমান্ত নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে বর্তমানে করোনা মোকাবেলায় অপেক্ষাকৃত ভালো অবস্থানে রয়েছে।

উচ্চঝুঁকিপূর্ণ দক্ষিণ আফ্রিকান দেশগুলো থেকে আগত ভ্রমণকারীদের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন পালনের নির্দেশ দিয়েছে তাইওয়ান।

তবে নতুন ভ্যারিয়েন্ট মোকাবেলায় নিউজিল্যান্ড পুরোপুরি তৈরি বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন। চলতি সপ্তাহের শুরুতে নিউজিল্যান্ড জানায়, আগামী বছরের ৩০ এপ্রিল থেকে ভ্যাকসিনের পূর্ণ ডোজ গ্রহণকারীদের জন্য দেশটি উন্মুক্ত করা হবে।

নতুন ভ্যারিয়েন্টের জন্য পরিকল্পনা পেছানো হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে আরডার্ন বলেন, “সুরক্ষা দিতে অভ্যন্তরীণ একাধিক প্রতিরোধ স্তর রয়েছে।”

“ভবিষ্যতের নতুন সব ভ্যারিয়েন্টের কথা মাথায় রেখেই আমরা কোভিড সংক্রান্ত যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি,” বলেন জেসিন্ডা আরডার্ন।

  • সূত্র: রয়টার্স