কোহলি নৈপূন্যে সিরিজ জিতল ভারত

Advertisements

সমান ৩ ম্যাচ করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টি-টোয়েন্টি সিরিজে স্বাগতিক ভারতের কাছে ২-১ ব্যবধানে হেরে ওয়ানডে সিরিজটা জয় দিয়ে শুরু করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

চেন্নাইয়ে প্রথম ওয়ানডেতে ভারতকে ৮ উইকেটে হারিয়ে দুর্দান্ত শুরু করা ক্যারিবীয়রা দ্বিতীয় ম্যাচে হেরে যায় ১০৭ রানে। আজ সিরিজের তৃতীয় ও সিরিজ নির্দারণী ম্যাচ ছিল ওড়িশার বারবাতি  স্টেডিয়ামে। ঘরের মাঠে স্বাগতিকরা টস জিতে উইন্ডিজদের আমন্ত্রণ জানায় ব্যাটিংয়ের। ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মন্থর ছিল ক্যারিবীয়দের। দুই ওপেনার এভিন লুইস ও শাই হোপের জুটি থেকে আসে ১৫ ওভারে ৫৭ রান মাত্র। এভিন লুইসকে ২১ রানে ফেরান রবীন্দ্র জাদেজা। এরপর দলীয় ৭০ রানে ৪২ রান করা শাই হোপকে বোল্ড করে ফেরান মোহাম্মদ শামী। তিন নম্বরে ব্যাট করতে আসা রোস্টন চেজকেও বোল্ড করে বিদায় করেন শামীই। চেজের ব্যাটে আসে ৪৮ বলে ৩৮ রান। তার আগে শিমরণ হেটমেয়ারকে ৩৭ রানে ফেরান নবদীপ সাইনি। দলীয় ১৪৪ রানে যখন ক্যারিবীয়দের ৪ উইকেট নেই তখন ১৩৫ রানের লম্বা জুটি গড়েন কাইরণ পোলার্ড ও নিকোলাস পুরান। এই দুই হার্ড-হিটার মিলে যেন নতুন করে শুরু করেন ক্যারিবীয়দের ইনিংস। একের পর এক বাউন্ডারিতে ১৪৪ রান থেকে স্কোর টেনে নেন ২৭৯ রানে। নিকোলাস তার নামের পাশে লেখেন ৬৪ বলে ৮৯ রান। শার্দুল ঠাকুরের বলে পুরান বিদায় নিলেও পোলার্ড অপরাজিত থেকে যান ৫১ বলে ৭৪ রানে।

৫০ ওভার শেষে ক্যারিবীয়দের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ৩১৫ রান। ভারতের হয়ে ২টি উইকেট নেন নবদীপ সাইনি। এছাড়া ১টি করে উইকেট নেন শার্দুল ঠাকুর, শামী ও জাদেজা। ক্যারিবীয়দের দেয়া ৩১৬ রানের লক্ষ্য টপকাতে নেমে শুরু থেকেই ধরে খেলেন দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুল। রাহুল ধীরে রান তুললেও রোহিত তার সহজাত খেলাটাই খেলেন। তাতে ৬৩ বলে ৬৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন জেসন হোল্ডারের বলে ক্যাচ দিয়ে। গত ম্যাচে গোল্ডেন ডাকে ইনিংস শেষ করা কোহলই খেললেন আজ বিরাট ইনিংস। তার ৮১ বলে ৮৫ রানের ক্যাপ্টেন্স নক ম্যাচ থেকে ছিটকে দেয় ক্যারিবীয়দের। দলীয় ১৬৭ রানের মাথায় লোকেশ রাহুল বিদায় নেন ৭৭ রানে। বিরাটের বিদায়ের পর রবীন্দ্র জাদেয়ার অপরাজির ৩৯ আর শার্দুল ঠাকুরের ৬ বলে ১৭ রানে ভর করে ৮ বল হাতে রেখে ৪ উইকেটে ম্যাচ ও সিরিজ জিতে নেয় ভারত। ক্যারিবীয়দের হয়ে ৩ উইকেট নেন কেমো পল।

এছাড়া ১ উইকেট করে নেন শেলডন কটরেল, হোল্ডার ও আলজারি জোশেপ।